bn বাংলা
১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ইংল্যান্ড কিংবা ভারত, কোথাও আইপিএলের সুযোগ নেই : সৌরভ গাঙ্গুলি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের কারণে অনির্দিষ্টকারের জন্য স্থগিত হয়ে গেছে আইপিএলের ১৪তম আসর। স্থগিত হওয়া আসরের বাকি অংশ আয়োজনে অনেকেই আগ্রহ প্রকাশ করেছে। তাদের মধ্যে অন্যতম ইংল্যান্ড। তবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, ভারত কিংবা ইংল্যান্ড, কোথাও আইপিএলের বাকি অংশ আয়োজনের সুযোগ নেই।

বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল এবং ইংল্যান্ড সিরিজের মাঝখানে ইংল্যান্ডে আইপিএলের বাকি অংশ অনুষ্ঠিত হতে পারে -এমন গুঞ্জন উঠেছিল। বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে সৌরভ বলেন, ’সে সম্ভাবনা নেই।’

সম্ভাবনা না থাকার কারণও জানিয়েছেন সৌরভ। বলেন, ‘ইংল্যান্ড সিরিজের পর দল শ্রীলঙ্কায় যাবে ভারত দল। সেখানে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিনটি ওয়ানডে এবং পাঁচটি টি-টোয়েন্টি খেলবে। সেখানেও ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন পালন করতে হবে। তাই আইপিএল ভারতে আয়োজনের কোনো সুযোগ নেই। এছাড়া আইপিএলের বাকি অংশ কবে আয়োজন করা সম্ভব তাও এ মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না।‘

দেশের মাঝে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়লেও চলছিল আইপিএল। শেষ পর্যন্ত খেলোয়াড়রা আক্রান্ত হলে স্থগিত করা হয়। এ অবস্থায় আইপিএল আরও আগেই স্থগিত করা উচিত ছিল কি-না সে প্রশ্নেরও জবাব দিয়েছেন সৌরভ গাঙ্গুলি।

তিনি বলেন, ‘এখন হয়তো অনেকের মনে হতে পারে আইপিএল আগেই বন্ধ করা উচিত ছিল। কিন্তু মুম্বাই এবং চেন্নাইয়ে কেউ আক্রান্ত হয়নি। দিল্লি এবং আহমেদাবাদে খেলা শুরু হওয়ার পর থেকেই এ সমস্যা দেখা দিয়েছিল।’

লোকে অনেক কথা বলবে। কিন্তু ফুটবলে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের দিকে তাকান, ওখানেও অনেকেই করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে। কিন্তু ওরা ম্যাচের তারিখ পিছিয়ে দিয়ে খেলা আয়োজন করছে। তবে এটা আইপিএলে সেটা সম্ভব নয়। কারণ, আইপিএল সাতদিনের জন্য বন্ধ করে দিলে সবাই বাড়িতে চলে যাবে। আবার বায়ো-বাবলে ঢুকতে গেলে কোয়ারেন্টাইন করতে হবে।‘

মহামারির তীব্রতা সত্ত্বেও আইপিএল চালানো নিয়ে অনেকে সমালোচনা করেছেন। তবে সে কথা কানে তুলতে রাজি নন সৌরভ।

তিনি বলেন, ‘আবারও বলছি, যদি কেউ আক্রান্ত না হতো তাহলে আইপিএল চলতো। ক্রিকেটাররা বায়ো-বাবলে ছিল এবং মাঠে কোনো দর্শক প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছিল না। কোনো ক্রিকেটার করোনায় আক্রান্ত হয়নি। ক্রিকেটাররা করোনা আক্রান্ত হওয়া মাত্রই আইপিএল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বাকি লিগগুলোর দিকে তাকান, সেখানে প্রচুর করোনা আক্রান্ত হওয়ার পরও লিগ বন্ধ করে দেওয়া হয়নি।‘

আরো দেখুন
error: Content is protected !!