bn বাংলা
৭ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
২৩শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ডাব খাবেন ডাব মাত্র ১১০ টাকা!

সৈয়দ বদরুদ্দোজা টিপু

ডাব খাবেন ১১০ টাকা!
গরমের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ডাবের দাম। আকারভেদে প্রতি পিস ডাব ৮০ টাকা থেকে ১০০ টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে। কোথাও কোথাও এর দাম আরও চওড়া। আমাদের পাড়ার হাসপাতালগুলোর সামনে প্রতিটা ডাব বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকায়।

গত শনিবার (১ মে) কুমিল্লা শহরের এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

দুপুরে বাদুরতলা মুন হাসপাতালের সামনে গিয়ে দেখা গেছে, বড় আকারের একটি ডাব ৯০ থেকে ১০০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে। এই আকৃতির একটি ডাবে এক থেকে দেড় গ্লাস পানি হবে। একই ধরনের ডাব কুমিল্লা টাওয়ারের সামনে বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকায়। অপেক্ষাকৃত একটু ছোট ডাব বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকায়। বাজারে এখন ৭০ টাকার নিচে কোনও ডাব নেই।

ধর্মসাগরপারের মোতালেব মিয়া বলেন দামের কথা জিজ্ঞেস করতেই তিনি বলে উঠলেন, একদাম ১০০! তার ডাবে কতটুকু পানি হতে পারে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ঠিক নাই। এক গ্লাসও হতে পারে, দেড় ক্লাসও হতে পারে।

তার পাশে ডাব বিক্রি করছেন আরেক জন দোকানি। তিনি কিছুটা ঠাট্টা করে বলেন, এখনও কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে না। আর দুই দিন গেলে ডাবও কেজি দরে বিক্রি হতে পারে। তরমুজ-আনারস যদি কেজি দরে বিক্রি হয় তাহলে ডাব কী দোষ করেছে?

ডাবের দাম বেশি চাওয়ার কারণ জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আমার ডাব অনেক বড়। বেশি দামে কিনে আনতে হয়। একটা ডাবে সর্বোচ্চ ১০-১৫ টাকা লাভ করছি।

বিক্রেতারা বলছেন, গরমে ডাবের চাহিদা অনেক বেশি। এছাড়া লকডাউনের কারণে নদীপথে যাত্রীবাহী লঞ্চ বন্ধ। গাড়ি দিয়েও মাল আসতে পারে না ফলে দক্ষিণাঞ্চল থেকে ডাবের সরবরাহ কম। বাজারে ডাবের চাহিদা অনেক বেশি।

যে কারণে বাজারে ডাবের দাম চড়া আর ইফতারিতে মানুষ ডাবের পানি খেতে চায় কিন্তু বাজারে ডাবের সরবরাহ খুবই কম। এ কারণে ডাবের দাম বাড়তি।

আরো দেখুন
error: Content is protected !!