bn বাংলা
২রা জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
১৮ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মাদকাসক্ত ছেলেকে শিকলে বেঁধে ইউএনওর কাছে নিয়ে এলেন বাবা

নিউজ ডেস্ক
ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে কারাগারে না দিয়ে শিকলবন্দি রহমানকে (২৫) মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রের মাধ্যমে নিরাময়ের দায়িত্ব নিয়েছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব তরুণ কান্তি শিকদার।

ইউএনও অফিস ও পারিবারিক সূত্র জানায়, শনিবার (৮ মে) মহম্মদপুর উপজেলার ফুলবাড়িয়া গ্রামের কুদ্দুস মিয়া তার মাদকাসক্ত ছেলে রহমানকে শিকলবন্দি অবস্থায় মহম্মদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রামানন্দ পালের কাছে নিয়ে আসলে তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তাকে ফোনে বিষয়টি অবগত করান। জবাবে তরুণ শিকদার যুবকের নিরাময়ের জন্য খুলনার সোনাডাঙ্গায় একটি মাদকাসক্তি নিরায়ম কেন্দ্রে ভর্তির ব্যবস্থা করেন।

মহম্মদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রামানন্দ পাল জানান, মাদকাসক্ত ছেলে রহমানের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছিল তার পরিবার। এ অবস্থায় গত কয়েকদিন তাকে শিকলবন্দি করে রাখা হয়র। শনিবার দুপুরে রহমানকে শিকলবন্দি করে তার কাছে নিয়ে আসেন বাবা কুদ্দুস মিয়া। ছেলেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে আইনের হাতে সোপর্দ করার অনুরোধ জানান তিনি। তাৎক্ষণিক এ বিষয়ে তিনি মহম্মদপুরের সন্তান ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব তরুণ কান্তি শিকদারের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন। পরে তার রেফারেন্সে ওই যুবককে খুলনার সোনাডাঙ্গায় একটি মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্র ভর্তি করার ব্যবস্থা করা হয়। রোববার (৯ মে) তাকে সরকারি খরচে খুলনায় পাঠানো হবে।

রহমানের পরিবারের সদস্যরা জানান, রহমানকে প্রাথমিক জীবনে মাদ্রাসায় ভর্তি করা হয়। সেখানে প্রায় তিন বছর পড়াশোনা করে অভাবের তাড়নায় মাগুরায় ট্রাকে হেলপার হয়ে কাজ করা শুরু করেন। কিন্তু গতবছর লকডাউনে কর্মহীন হয়ে বাড়িতে এসে বেকার জীবনযাপন করতে থাকেন। পরে সঙ্গদোষে ড্যান্ডি ও ফেভিকল আঠার নেশায় পড়ে সম্পূর্ণ নেশাগ্রস্থ হয়ে পড়ে। পরবর্তীতে সংসারে অশান্তি সৃষ্টিসহ অসামাজিক কার্যকলাপে জড়িয়ে পড়েন। যে কারণে শনিবার তার বাবা মাদকাসক্ত ছেলেকে শিকল দিয়ে বেঁধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে নিয়ে আসেন।

আরো দেখুন
error: Content is protected !!