১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুমিল্লায় আওয়ামী লীগ নেতাকে জবাই করে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক।।
কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার দূর্গাপুর উত্তর ইউনিয়নের আলেখাচরে আওয়ামী লীগ নেতা এনামুল হককে প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষ।

অভিযোগ রয়েছে, এনামুলের সাথে একটি পক্ষের মাদ্রাসা কমিটি নিয়ে বিরোধ ছিলো। তারই রেশ ধরে শুক্রবার জুমার নামাজের পর এনামুলকে প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। তার গলা ও হাতে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে।

নিহত এনামুল হক আলেখাচর গ্রামের আবদুল ওয়াদুদের পুত্র ও সদর উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।

এনামুলের পিতা আবদুল ওয়াদুদ জানান, শুক্রবার (১৮ মে) দুপুরে জুম্মার নামাজ থেকে এনামূল বের হলে কাজী জহিরুল ইসলামের নেতৃত্বে তার ভাই কাজী আমানুল ইসলাম ও সাইদ মিলে এনামুলকে টেনেহিঁচড়ে মসজিদের সামনে ছুরিকাঘাত করে।

মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে প্রথমে কুমিল্লা জেনারেল হাসপাতালে ও পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ নিয়ে যায়। বিকাল ৩ টার দিকে হাসপাতালে এনামুল মারা যায়।

সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহমেদ নিয়াজ পাবেল জানান, আওয়ামী লীগ কর্মী এনামুলের সাথে জামাত নেতা কাজী জহির গংদের রাজনৈতিক বিরোধের পাশাপাশি এনামুলের প্রতিষ্ঠিত আলেখাচর দক্ষিণ পাড়া জমিরিয়া তালিমুল হাফিজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানার দখল নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল।

এছাড়া বৃহস্পতিবার কাজী জহিরের মাদক সেবন ও জুয়া খেলার একটা ভিডিও ভাইরাল হয়। এর জন্য এনামুল কে দায়ী করে।

এতে কাজী জহির গ্যাং এনামুলের উপর ক্ষুব্ধ হয়ে শুক্রবার জুম্মার নামাজ পড়ে বের হলে কাজী জহিরের উপস্থিতিতে তার ভাই আমানুল সহ জামাত শিবির কর্মীরা এনামুল এর গলা কেটে হত্যাচেষ্টা করে।

তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে হাসপাতালে সে মারা যায়।

ক্যান্টনমেন্ট পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। হত্যায় জড়িতদের ধরতে অভিযান চলছে।

আরো দেখুন
error: Content is protected !!