২৫শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
১০ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুমিল্লায় স্কুলের সেপটিক ট্যাংকে ভাসছিল তিন বছরের নুরী

নিজস্ব প্রতিবেদক।।
কুমিল্লা সদরের আমড়াতলী ইউনিয়নের উত্তর রসুলপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নির্মানাধীন সেপটিক ট্যাংকিতে পড়ে তিন বছর বয়সী মোছা. নুরী নামে এক শিশু নিহত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) বিকেলে রসুলপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এই ঘটনা ঘটে।

নিহত শিশু আদর্শ সদর উপজেলার আমড়াতলী ইউনিয়নের প্রবাসী মোহাম্মদ রিজানের কন্যা মোছা. নুরী।

কুমিল্লা কোতোয়ালি থানার পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত শিবেন বিশ্বাস নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বিকালে তার মায়ের সাথে নানা বাড়ি বেড়াতে যাবার কথা ছিল। দুই মাসের বেশী সময় ধরে উত্তর রসুলপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সেপটিক ট্যাংকির জন্য গর্ত করে ফেলে রাখে ঠিকাদার।

কোনো নিরাপত্তা বেষ্টনি ছাড়াই ফেলে রাখা হয় সেপটিক ট্যাংকের জন্য করে রাখা গর্তটি। বৃষ্টির পানিতে পুরো হয়ে যাওয়ায় ওই শিশু কন্যা পড়ে যায় গর্তে। বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে নুরের লাশ ভেসে উঠে ওই গর্তের পানিতে।

রসুলপুর এলাকার বাসিন্দা শামীম আহমেদ জানান, কোনো নিরাপত্তা বেষ্টনী ছাড়াই ফেলে রাখা হয় সেপটিক ট্যাংকের জন্য করে রাখা গর্তটি। বৃষ্টির পানিতে পুরো হয়ে যাওয়ায় ওই শিশুটি পড়ে যায় গর্তে। পরে দুপুর ২টার দিকে নুরীর মরদেহ ভেসে ওঠে ওই গর্তে।

উত্তর রসুলপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মো. স্বপন আহমেদ জানান, আমরা বারবার ঠিকাদারকে বলেছিলাম যেন সেপটিক ট্যাংকের নির্মাণকাজ দ্রুত শেষ করার জন্য। উনি কেন এটা করলেন না, আমার বোধগম্য নয়। আমরা উপজেলা চেয়ারম্যানকে বিষয়টি জানিয়েছি। তিনি যাথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

এ বিষয়ে কুমিল্লা কোতয়ালি মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত শিবেন বিশ্বাস বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। আমরা পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করব।

আরো দেখুন
error: Content is protected !!